1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : editor :
  3. [email protected] : moshiur :
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৪:২৬ অপরাহ্ন

শেষ সময়েও চাহিদায় ‘ছোট গরু’, বড় গরুর পাইকার বললেন ‘টেনশনে আছি’

মহানগর রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪
  • ২০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়ার একটি অ্যাগ্রো ফার্ম থেকে ছয়টি বড় গরু কিনে বেশি মুনাফার আশায় রাজধানীর হাজারীবাগ গরুর হাটে এসেছেন পাইকার আফাজ উদ্দিন। কিন্তু হাটে এসে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে তার। অতিরিক্ত মুনাফা তো দূরে থাক, বড় গরুর দামও কেউ জানতে চাইছেন না। শেষ সময়ে এসেও কাটতি বেশি ছোট ও মাঝারি আকারের গরুর।

আফাজ উদ্দিন বলেন, খুব টেনশনে আছি ভাই। অনেক বছর ধরে আমি গরুর ব্যবসা করি। এমন অবস্থা কখনো দেখিনি। এবছর যারা হাটে আসছেন তারা কম দামে ছোট কিংবা মাঝারি সাইজের গরুই বেশি কিনছেন। আর যারা একটু বড় গরু কিনছেন তারা কেউ হাটে আসছেন না। সবাই যাচ্ছেন ঢাকার মধ্যের এবং আশপাশের বিভিন্ন ফার্মে। আমার ছয়টি গরুর মধ্যে ৩টি গরু বিক্রি হয়েছে। তাও কেনা দামেই ছাড়তে হয়েছে। বাকি ৩টি আজকের মধ্যে বিক্রি না হলে বিপদে পড়ে যাব। এই গরু ফেরত নিয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা আমার নেই।

রোববার (১৬ জুন) সরেজমিনে রাজধানীর হাজারীবাগ হাট ঘুরে এমন অবস্থাই চোখে পড়েছ। শুধু আফাজ উদ্দিনই নয়, এমন অবস্থার কথা জানান আরও কয়েকজন।

বিক্রেতারা বলছেন, এখন বেশি চলছে ৭০, ৮০, ৯০ এবং সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার গরু। এরমধ্যে সাইজে ছোট গরু ৭০-৮৫ এবং মাঝারি সাইজের গরু ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। আর বড় সাইজের গরু ন্যূনতম ১ লাখ ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে দেড় লাখ বা আরও বেশি দাম চাওয়া হচ্ছে। অবশ্য হাজারীবাগ হাটে ক্রেতার সংখ্যা কিছুটা কম হওয়ার কারণে এখন আর কেউ নতুন করে গরু আনতে চাইছেন না। বরং যার কাছে যা গরু আছে সেগুলো মোটামুটি লাভে ছেড়ে দিতে পারলেই হাফ ছাড়ছেন।

অপরদিকে এখনো দল বেঁধে গরু কিনতে আসতে দেখা গেছে ক্রেতাদের। দুপুর একটার দিকে হাটের উত্তর পাশের গেট সংলগ্ন এলাকায় দেড় লাখ টাকা চাওয়া গরু ৮০-১ লাখ টাকায় কেনার জন্য দামাদামি করতে দেখা গেছে।

আরিফ রব্বানী নামের এক ক্রেতা বলেন, এখন আর খুব বেশি গরু হাটে নেই। আমাদের গরু রাখার জায়গা নেই। সেজন্য শেষ সময়ে কিনতে এসেছি। সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা আমার বাজেট। হাটে ঘুরেফিরে দেখছি। দামাদামি করছি। আমার কাছে মনে হচ্ছে, এখনো বিক্রেতারা দাম ধরে রাখছেন। এখন যারা হাটে আছেন তাদের অধিকাংশই পাইকার। কৃষকের কাছ থেকে গরু কিনে এনেছেন। সেজন্য সর্বোচ্চ লাভ না হলে গরু ছাড়বেন না। এই হাটে গরু না পেলে গাবতলী চলে যাব।

স্ত্রী, বড় বোন এবং দুই মেয়েকে নিয়ে গরু কিনতে আসা হারিসুল ইসলাম বলেন, সবাই মিলে গরু কিনতে এসেছি। এটি অন্যরকম আনন্দের ব্যাপার। গরুর দাম কমই মনে হচ্ছে। ৭০-৮০ হাজার টাকায় মোটামুটি ছোট দেখে একটি গরু কেনার জন্য এসেছি। এখনো ঘুরেফিরে দেখছি। যেটা পছন্দ হচ্ছে সেটার দাম আবার বেশি চাইছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: সিসা হোস্ট