1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : editor :
  3. [email protected] : moshiur :
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:১৭ অপরাহ্ন

এবার ১ জানুয়ারি ‘বই উৎসব’ নাও হতে পারে

শিক্ষা ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৫১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

গত ১৩ বছর ধরে ১ জানুয়ারি শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসব উদযাপন করে সরকার। এবারও বই উৎসব করার জন্য বই ছাপিয়ে প্রস্তুতি নিলেও ১ জানুয়ারি সেই উৎসব সম্ভবত হচ্ছে না। ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে চলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে উৎসব হবে এবং সেটি প্রয়োজনে নির্বাচনের পর হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবার বছরের প্রথম দিন অর্থাৎ ১ জানুয়ারি বই উৎসব করা নিয়ে ‘সংশয়’দেখা দিয়েছে। এবার বই উৎসবটা ঠিক ১ তারিখে (জানুয়ারি) করব নাকি নির্বাচনের পরে ১০-১১ তারিখে হবে, সেটা নিয়ে আলোচনা চলছে। আমরা একটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করছি।

ডা. দীপু মনি বলেন, বই উৎসব নিয়ে এখন আমাদের ভাবতে হচ্ছে। যেহেতু ৭ জানুয়ারি নির্বাচন। নির্বাচনের পরের সময়টা আসলে কেমন থাকবে, সেটাও আমাদের একটু বিবেচনায় নিতে হবে। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার হয়। সে কারণে এবার বই উৎসবটা ঠিক ১ তারিখে করব নাকি নির্বাচনের পরে ১০ থেকে ১১ তারিখ করব, সেটা নিয়ে একটু সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করছি। সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে শিগগিরই সেটা জানাতে পারব।

মাধ্যমিকের লটারির ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে নবম শ্রেণি ও ষষ্ঠ-সপ্তম শ্রেণির বই ছাপানোর কাজ শুরু না হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যেগুলো এখনো ছাপানো শুরু হয়নি। সেগুলো সব ছাপানো শুরু হয়ে যাবে। বই উৎসব যখনই করি না কেন, শতভাগ বই শিক্ষার্থীর হাতে পৌঁছে দেওয়া হবে।

গত বুধবার চাঁদপুরে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে শিক্ষামন্ত্রী জানুয়ারির ১ তারিখে বই উৎসবের বিষয়ে জানিয়েছিলেন। তখন তিনি বলেছিলেন, আগামী ১ জানুয়ারি আমাদের বই উৎসব হবে। উৎসব করার জন্য আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

উল্লেখ্য, বর্তমান সরকার ২০১০ সাল থেকে বিনামূল্যে বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই পৌঁছে দিচ্ছে। তবে গত বছর তাতে ছেদ পড়ে। কয়েক ধাপে শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছানো হয়। পাশাপাশি গত বছর বইয়ে ভুল-ত্রুটি নিয়েও বিতর্কের মুখে পড়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।

এই সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: সিসা হোস্ট